3.24.2020

করোনার পর চিনে আবির্ভাব হন্তাভাইরাসের, মৃত ১

চিনের সরকারি সংবাদমাধ্যম Global Times জানিয়েছে,'


চিনের শেনডং প্রদেশ থেকে ইউন্নান প্রদেশে যাওয়ার পথে হন্তাভাইরাসে আক্রান্ত বাসে এক ব্যাক্তির মৃত্যু হয়েছে। 

(zeenews) নিজস্ব প্রতিবেদন: করোনাভাইরাসকে (Coronavirus) সামলাতে পুরো পৃথিবী সংকটময়।  এর মধ্যে করোনাভাইরাসের উৎপত্তি স্থল চিন এ ধরা পড়ল নতুন ভাইরাস নাম হন্তাভাইরাস।


চিনের সরকারি সংবাদমাধ্যম Global times জানিয়েছে,'শেনডং প্রদেশ থেকে ইউন্নান প্রদেশে যাওয়ার পথে সোমবার চিনের দেশের ইউন্নান প্রদেশে হন্তাভাইরাসে (hantavirus) একটি বাসে মৃত্যু হয়েছে এক জনের। ওই বাসের ৩২ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। 


center for dgiz control and prebenstion অনুযায়ী, করোনাভাইরাসের পরিবারের অন্তর্ভূক্ত এই হন্তাভাইরাস। ইঁদুর ও কাঠবেড়ালিদের শরীরে থাকে হন্তাভাইরাস।হন্তাভাইরাসে আক্রান্ত হলে হতে পারে  বমি, পেটে ব্যাথা,করোনার মতো শুকনো কাশি ও শ্বাসপ্রশ্বাসের সমস্যা। 

সোর্স : zeenews.india.com/bengali/world/one-person-died-of-hantavirus-in-china_307131.html

3.22.2020

স্বাধীনতা বিপ্লবী মাষ্টার দা সূর্যসেনের জন্মদিন আজ

আজ ২২ মার্চ এক মহান বাঙালি স্বাধীনতা বিপ্লবীর জন্মদিন

বিট্রিশ বিরোধী আন্দোলনের অন্যতম মাষ্টার দা সূর্যসেনের ১২৬ তম জন

সূর্যসেন, মাস্টারদা (১৮৯৪-১৯৩৪) ‘যুগান্তর’ দলের চট্টগ্রাম শাখার প্রধান ও স্বাধীনতা বিপ্লবী,  এবং ১৯৩০ সালে বিট্রিশ বিরোধী আন্দোলনে চট্টগ্রাম অস্ত্রাগার লুণ্ঠনের প্রধান সংগঠক। মাষ্টার দা সূর্যসেনের জন্ম ১৮৯৪ সালের ২২ মার্চ চট্টগ্রামের রাউজান থানার নোয়াপাড়া গ্রামে। মাষ্টার দা সূর্যসেনের পুরো নাম সূর্যকুমার সেন, ডাক নাম কালু। বাবা রাজমনি সেন এবং মা শশীবালা দেবী। স্থানীয় দয়াময়ী বিদ্যালয়ে প্রাথমিক শিক্ষার পর নোয়াপাড়া উচ্চ ইংরেজি বিদ্যালয়ে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশুনা করেন এবং ১৯১২ সালে চট্টগ্রাম ন্যাশনাল হাই স্কুল থেকে প্রবেশিকা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে চট্টগ্রাম কলেজে ভর্তি হন।


সূর্যসেন যখন নোয়াপাড়া উচ্চ ইংরেজি বিদ্যালয়ের ছাত্র তখন বঙ্গভঙ্গকে (১৯০৫) কেন্দ্র করে বাংলায় স্বদেশী আন্দোলন শুরু হয়। ক্রমে এই আন্দোলন বিপ্লবী আন্দোলনে রূপ নেয়। ১৯১৬ সালে মুর্শিদাবাদের বহরমপুর ফিরে গিয়ে ব্রিটিশ বিরোধী একটা বিপ্লবী দল গড়ে তোলার সিদ্ধান্ত নেন। সূর্যসেন ১৯১৮ সালে চট্টগ্রামে ফিরে বিপ্লবী যুগান্তর দলকে পুনরুজ্জীবিত করেন। 

 ১৯১৯ সালের পাঞ্জাবের জালিয়ানওয়ালাবাগের হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে চট্টগ্রামের ছাত্ররা ক্লাসবর্জন সহ সভা-সমাবেশ করে। চট্টগ্রামের বিপ্লবীরা মাস্টারদা এর নেতৃত্বে সংঘবদ্ধ হন। 






১৯৩০ সালের ১৮ এপ্রিলের সশস্ত্র বিদ্রোহ ছিল সূর্যসেনের নেতৃত্বে বিপ্লবীদের দীর্ঘ সময়ের প্রস্ত্ততি ও সুষ্ঠু পরিকল্পনার ফসল। প্রাথমিক পর্যায়ে অহিংস ও নিয়মতান্ত্রিক পথ ধরে বিপ্লবের সূচনা হলেও সময়ের ব্যবধানে সংগ্রামের অবশ্যম্ভাবী পরিণতিতে হিংসাত্মক কর্মনীতি বা বিপ্লববাদ দেখা দেয়। খ্রিস্টানদের গুড ফ্রাইডেতে বিপ্লবীদের কর্মসূচি ছিল:

১. পুলিশের অস্ত্রাগার লুণ্ঠন। এই দলের নেতৃত্ব দেন অনন্ত সিং ও গণেশ ঘোষ;

২. দলের নেতৃত্বে ছিলেন নির্মল সেন ও লোকনাথ কাজ ছিল অক্সিলিয়ারি ফোর্সের অস্ত্রাগার দখল। 






৩.  আম্বিকা চক্রবর্তী এই দলের নেতৃত্ব দায়িত্ব ছিল টেলিফোন-টেলিগ্রাফ ভবন দখল।

৪.  নরেশ রায়ের নেতৃত্বে ইউরোপীয় ক্লাব আক্রমণ।

৫. চট্টগ্রামের সঙ্গে অন্যান্য অঞ্চলের রেল যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করার দায়িত্বে ছিলেন উপেন্দ্রকুমার ভট্টাচার্য ও লালমোহন সেন;

৬. বিদ্রোহের খবর চট্টগ্রাম শহরে প্রচারের দায়িত্বে ছিলেন সুখেন্দু দস্তিদার, শৈলেশ্বর চক্রবর্তী, অর্ধেন্দু গুহু, দীনেশ চক্রবর্তী ও হরলাল চৌধুরী।

বিপ্লবীদের ঘোষণাপত্রের প্রথমটিতে ছিল সশস্ত্র বিপ্লবের উদ্দেশ্য, দ্বিতীয়টিতে ছিল দেশের যুবকদের প্রতি রিপাবলিকান আর্মিতে যোগ দিয়ে সরকারের বিরুদ্ধে বিদ্রোহে যোগদানের আহবান।

১৮ তারিখে গুড ফ্রাইডে থাকায় সেদিন ইউরোপীয়ান ক্লাবে ইংরেজ পদস্থ কর্মকর্তারা কেউ উপস্থিত ছিল না এবং অক্সিলিয়ারি ফোর্সের অস্ত্রাগারে ভারী অস্ত্র মিললেও কোন গুলি পাওয়া যায়নি বলে এই দুটি ক্ষেত্রে আশানুরূপ সফলতা আসেনি। তবে সূর্যসেনের নেতৃত্বে পুলিশের অস্ত্রাগার দখলের পর অস্ত্র ও গুলি সংগৃহীত হয়।






অস্ত্রাগারে আগুন লাগানোর সময় অগ্নিদগ্ধ হয়ে গুরুতর আহত হন বিপ্লবী হিমাংশু বিমল সেন। সূর্যসেন পাহাড়ে আত্মগোপন করেন। তিনি দলের বয়োজ্যেষ্ঠ সদস্যদের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেন যে, বিপ্লবী দল চট্টগ্রামে গিয়ে ইংরেজদের আক্রমণ করবে। সবাই এতে একমত হলে মাস্টারদা লোকনাথ বলকে ভারতীয় প্রজাতন্ত্রী বাহিনীর সেনাপতি নিযুক্ত করেন ও বিপ্লব পরিচালনার দায়িত্ব দেন। ১৯৩০ সালের ২২ এপ্রিল এ সংঘটিত যুদ্ধে ১৪ জন বিপ্লবী শহীদ হন। সূর্যসেন এর নেতৃত্বে দলটি পাহাড়ে আত্মগোপন করেন। এদের ধরার জন্য ইংরেজ সরকার পুরস্কার ঘোষণা করে। সূর্যসেনকে গ্রেফতার করতে না পারলেও সরকার ১৯৩০ সালের ২৪ জুলাই চট্টগ্রাম অস্ত্রাগার লুণ্ঠন মামলা চট্টগ্রামের বিশেষ ট্রাইবুনালে শুরু করে। ১৯৩২ সালের জুন মাসে মাস্টারদা প্রীতিলতা ও কল্পনা দত্তকে বোমা সংগ্রহ করে চট্টগ্রাম কারাগার ডিনামাইট দিয়ে উড়িয়ে দেবার নির্দেশ প্রদান করেন। কিন্তু সে পরিকল্পনা ব্যর্থ হয়। এই ঘটনায় ১১ জন বিপ্লবী গ্রেফতার হন। ২৪ সেপ্টেম্বর তারিখে প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদার পাহাড়তলী ইউরোপীয়ান ক্লাবে সফল আক্রমণ চালান, তবে তিনি গুলিবিদ্ধ হন এবং সায়ানাইড খেয়ে আত্মহত্যা করেন।





এ ঘটনার পরে মাস্টারদা পটিয়ার নিকটে গৈরালা গ্রামে আত্মগোপন করেন। কিন্তু গ্রামবাসীদের একজন সূর্যসেনের লুকিয়ে থাকার তথ্য পুলিশকে জানিয়ে দেয়। ১৯৩৩ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারির প্রথম প্রহরে একদল গোর্খা সৈন্য গোপন স্থানটি ঘিরে ফেলে। সৈন্যবেষ্টনী ভেঙ্গে বেরিয়ে যাওয়ার সময় সূর্যসেন ধরা পড়েন। সঙ্গে ছিলেন কল্পনা দত্ত, শান্তি চক্রবর্তী, সুশীল দাস গুপ্ত ও মনিলাল দত্ত সহ আরও কয়েকজন বিপ্লবী।





‘যুগান্তর’ দলের চট্টগ্রাম শাখার নতুন সভাপতি তারকেশ্বর দস্তিদার সূর্যসেনকে চট্টগ্রাম জেল থেকে ছিনিয়ে আনার প্রস্ততি নেন। কিন্তু পরিকল্পনাটি ব্যর্থ হয়। তারকেশ্বর এর সঙ্গে আরও কয়েকজনের গ্রেপ্তার হন। ১৯৩৩ সালে সূর্যসেন, তারকেশ্বর দস্তিদার এবং কল্পনা দত্তের বিশেষ আদালতে বিচার হয়। ১৪ আগস্ট সূর্যসেন ও তারেকেশ্বর দস্তিদার এর ফাঁসির রায় হয় এবং কল্পনা দত্তের যাবজ্জীবন কারাদন্ড হয়। ১৯৩৪ সালের ১২ জানুয়ারি চট্টগ্রাম কারাগারে উভয়ের ফাঁসি কার্যকর হয়।
(★  বাংলাপিডিয়া)






কিন্তু দুঃখের বিষয় হলেও চরম সত্য,বর্তমানে কেউ এমন মহান ব্যক্তিকে স্মরণ করে না😰
যার কারনে আমরা স্বাধীন দেশ পেয়েছি,তাকেই আমরা ভুলে যাচ্ছি😰
উনাকে সম্মান জানানোর জন্য কোন স্মৃতি নেই বরং বিস্মৃতি করে দেওয়া হচ্ছে সবকিছু😰
বাংলাদেশে পালন করা হয় না, জন্মবার্ষিকী বা মৃত্যুবার্ষিকী😰
নতুন প্রজন্ম কিভাবে জানবে, এদেরকে আত্মত্যাগের কারনেই আমরা স্বাধীন দেশ পেয়েছি।
হয়তো নতুন প্রজন্ম চিনেই না উনি কে!!😰
এর মূল কারন হচ্ছে আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থা। কেননা, কোথায়ও এদের নাম পাওয়া যায় না😰

তারপরও আমাদের প্রাণে সবসময় তুমি আছে এবং থাকবে।
আজকে জন্মদিনের তোমাকে জানাই শতকোটি প্রণাম আর বিনম্র শ্রদ্ধাঞ্জলী🌹🌹

3.21.2020

Facebook Page Boost Bkash

সুখবর!  আমরা আপনাদের জন্য আজকের ট্রিকসে নিয়ে এসেছি খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি টিপস। আজকের টিপসে আমরা আপনাদের জানাব কিভাবে বিকাশ / নগদ দিয়ে পেমেন্ট করে আপনার ফেসবুক পেজ, ফেসবুক পেজের পোস্ট প্রচার বা কিভাবে ফেসবুকে আপনার বিজ্ঞাপন দিবেন। আমাদের সবারই মাস্টার কার্ড বা ইন্টারনেশন্যাল কোন কার্ড না থাকায় নিজের ব্যবসার প্রসারের জন্য ফেসবুকে বিজ্ঞাপন দিতে পারি না, কিন্তু আমরা HelpBangla.com কতপক্ষ আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি অসাধারণ সুবিধা। 

পুরো পোস্টটি অবশ্যই পরবেন তবেই সবকিছু জানবেন। আপনি আপনার পছন্দ অনুযায়ী মূল্য, পছন্দ অনুযায়ী বিজ্ঞাপন প্রচার করতে পারবেন পেমেন্ট বিকাশ / নগদ করে। সেক্ষেত্রে আপনি যেমন চান তেমনই পছন্দ অনুযায়ী বিজ্ঞাপন দিতে পারবেন আপনার পেজের, প্রতি ডলার আমরা ৭০ টাকা করে রাখি, আপনার যত ডলারের প্রয়োজন তত ডলারের বিজ্ঞাপন দেওয়া হয় আমাদের মাস্টার কার্ড দিয়ে। আপনার এড রানিং হওয়ার পর আমাদের পেমেন্ট বিকাশ / নগদে দিবেন,  যত ডলারের বিজ্ঞাপন দিবেন তত ডলারের টাকা।

contact us : Facebook Page

★★★প্রচারেই প্রসার★★★

কি কি বিজ্ঞাপন দেওয়া যাবে:

★ পেজ লাইক।

★ পেজের নিদিষ্ট পোস্ট বুস্ট।

★ পণ্য বেচার জন্য কাস্টমার আনা।

★ পোস্টের লাইক কমেন্ট বাড়ানো।

★ পোস্ট হাজার-হাজার লোকের কাছে পৌছানো


সুবিধা:

★ ইন্টারেস্ট অনুযায়ী বিজ্ঞাপন প্রচারের দেওয়ার সুবিধা।

★ লোকেশন অনুযায়ী বিজ্ঞাপন প্রদর্শনের সুবিধা।

★ বয়স অনুযায়ী বিজ্ঞাপন প্রদর্শনের সুবিধা।

★ ছেলে/মেয়ে জেন্ডার অনুযায়ী বিজ্ঞাপন প্রদর্শন।

★ ডলারের পেমেন্ট বিকাশ / নগদ এ দেওয়ার সুবিধা।

Contact Us : Facebook Page

ডলার / টাকা :

আমরা ডলার দিয়ে বুস্ট দিয়ে থাকি, সর্বনিম্ন ৫ ডলার (৭০*৫=৩৫০ টাকা) থেকে শুরু, প্রতি ডলারের মূল্য ৭০ টাকা,  আপনি যত ডলারের বুস্ট দিবেন আপনার হয়ে আমরা দিয়ে দিব। আপনার বুস্ট রানিং হলেই প্রতি ডলার ৭০ টাকা করে আমাদের পেমেন্ট দিয়ে দিবেন আমাদের বিকাশ / নগদ নম্বারে।

ফেসবুক বুস্ট দিতে আপনাকে কি করতে হবে?

আপনি যেই পেজ প্রমোট, পেজ লাইক বা পোস্ট বুস্ট করতে চান সেই পেজ এ আমাদের একটি ফেসবুক আইডি page role এ গিয়ে editor করে দিবেন, তাহলে আপনার পেজের যেকোন পোস্ট আপনার পছন্দানুযায়ী আমরা বুস্ট করে দিতে পারব।

আমরা যত্নের সাথে আপনার বিজ্ঞাপনগুলি দিয়ে থাকি, কারণ বুস্ট দিয়ে আপনার লাভ হলেই তো পরের বার আমাদের থেকে বুস্ট দিবেন। আমাদের থেকে একবার বুস্ট দিয়ে দেখুন আর বুস্ট শেষ হলে আপনার মতামতটি আমাদের পেজে রিভিউতে দিন। আরো বিস্তারিত জানতে আমাদের পেজ এ মেসেজ দিন।

আমরা প্রফেশনাল ভাবে পেজ বুস্ট করে থাকি তাই আজই আমাদের মেসেজ দিন আপনার বিজ্ঞাপন প্রচার করুন, কাস্টমার আনুন আপনার ব্যবসায় ।

বিস্তারিত ও যেকোন বিষয়ে জানতে মেসেজ করুন


3.20.2020

অনলাইনে সহজেই করোনা টেস্ট করুন মিনিটেই

আজকে আমি আপনাদের শেয়ার,করব দারুন একটি ওয়েবসাইট,  নিয়মিত টিপস ও ট্রিকসের জন্য HelpBangla.com ভিজিট করুন।
ইন্টারনেটে খুজে পেলাম দারুন একটি ট্রিকস, করোনাভাইরাসের ঝুকি আছে কিনা ব্যাক্তি নিজেই কয়েকটি প্রশ্নের উওর দিয়ে তা টেস্ট করাতে পারবে ওয়েব সাইট টিতে। সাইটে প্রবেশ করে শুরু করুন ক্লিক করার পর, ডানে - বামে টেনে আপনার বয়স নির্ধারণ করবেন এরপর নানা ধরণের প্রশ্ন জিজ্ঞেস করবে তা হা- না উওর দিবেন, যেমন: বা, প্রবীণ নাগরিক,  






জ্বর ৩৭.৫°C অথবা, ৯৮.৪°F থেকে বেশি, শ্বাসকষ্টের সমস্যা, কাশি, গলা ব্যথা, সম্প্রতি উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ অঞ্চল ভ্রমণ*, COVID-19 রোগীর সাথে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ এরকম। আর লক্ষণগুলো  পর্যবেক্ষণ করে ওয়েবসাইটের ফলাফল বলে দিবে করোনার ঝুকি আপনার আছে কিনা বা কি করবেন। ট্রাই করে দেখুন (স্কিনশুড ও সংযুক্ত করলাম) মনে রাখবেন এটা শুধু প্রাথমিক ধারণা দিবে:-

করোনা টেস্ট ওয়েবসাইট লিংক : http://coronatestbd.com

আরো পড়ুন:

=>

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয় জেনে নিন



স্কিনশুড:

শুরু করুন ক্লিক করলাম

গোল বৃত্তে টার্চ রেখে ডানে-বামে করে বয়স,দিলাম।





 

আমার মতে এগুলা প্রাথমিক ধারণা বা লক্ষণগুলো মিলিয়ে নেওয়া, নিয়মিত এরকম টিপস পেতে HelpBangla.com ভিজিট করুন।

আরো পড়ুন:

=>

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয় জেনে নিন



3.16.2020

করোনা সংক্রমণ রোধে আগামিকাল থেকে সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা

আগামিকাল ১৭ ই মার্চ মঙ্গলবার থেকে সারাদেশের সকল স্কুল-কলেজ, সকল মাদরাসাসহ সব ধরণের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ সরকার। আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধের কারণে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে।


১৬ মার্চ সোমবার  শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকার বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন।






আরো দেখুন:

তিনি আরও বলেন, এ বিষয়টি তুল ধরতে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি আজ দুপুর ১টায় সংবাদ সম্মেলনে আলোচনা করবেন।






ইতোমধ্যে বাংলাদেশে পাঁচজন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে তিনজনই বর্তমানে সুস্থ। দুজন বাড়ি ফিরে গেছেন।

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা:

আরো দেখুন :

=> করোনাভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

 এখন পর্যন্ত আক্রান্ত: ১ লাখ ৬৯ হাজার ৫৫২ জন।


মৃত্যু : ৬ হাজার ৫১৬ জনের ।


সুস্থ হয়েছে: ৭৭ হাজার ৭৫ জন।

তথ্য সূত্র : https://www.jagonews24.com/m/national/news/565851

3.13.2020

বিশ্ব নেতারা নমস্কারকে গ্রহণ করেছে করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধের জন্য ( ভিডিও সহ )

সারা বিশ্বের আলোচ্য বিষয়গুলির অন্যতম করোনাভাইরাস। এখন পর্যন্ত এই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারিয়েছে ৪০০০+ মানুষ। চীনের উহান থেকে এই ভাইরাসের উৎপত্তি হলেও উৎপত্তি স্থল চীনের উহানে এই ভাইরাসের আক্রান্ত সংখ্যা ৯৫% কমে এসেছে।





বিশ্ব নেতারাও সতর্ক মূলক অবস্থানে রয়েছে করোনাভাইরাস নিয়ে, পোস্টের নিচে একটি ভিডিও আছে যাতে অভিবাদনে নমস্কারের ব্যবহার দেখবেন।

আরো পড়ুন:


সম্পতি ইতালিতে এই করোনাভাইরাসের কারণে বেশি লোক আক্রান্ত হচ্ছে। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত কোন ব্যাক্তির সংস্পর্শে আসলেই সুস্থব্যাক্তি আক্রান্ত হচ্ছে। ইরাকে এমপি সহ পালামেন্টের উচ্চপদস্থ কর্মচারীরা এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। তাই বিশ্ব নেতারাও এই ভাইরাস নিয়ে খুবই সতর্কমূলক অবস্থানে রয়েছে। সংস্পর্শ ছাড়াই অভিবাদনের রীতি হিসেবে তারা প্রয়োগ করছেন করজোড়ে "নমস্কার"। যাতে অভিবাদন ও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ব্যাক্তির  সংস্পর্শে কম আসা যাচ্ছে এবং নিরোগ থাকা যাচ্ছে।




আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প, ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট, বিট্রিশ মন্ত্রী থেকে শুরু করে অনেক বিশ্ব নেতারাই হ্যান্ড বিনিময় বাদ দিয়ে একে অপরকে নমস্কারে অভিবাদন জানাচ্ছে। তাদের ভাষ্যমতে অন্যের হাতের রোগ-জীবাণুর সংক্রমণ থেকেও বাচা যায় এই নমস্কারের রীতিতে। নিচে একটি ভিডিও দেওয়া হল:



ভিডিও ও তথ্য পূর্ণ লিখাটি পাঠিয়েছেন : Somoron Chy.
পড়ুন:


অবশ্যই ভাল লাগলে আমাদের পোস্টগুলি শেয়ার দিবেন। নিজের লেখা পোস্ট আমাদের সাইটে প্রকাশ করতে চাইলে আমাদের ফেসবুক পেজ এ দিন। 

3.08.2020

বাংলাদেশে তিন জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত

বাংলাদেশে প্রথম তিনজন নোভেল করোনা ভাইরাসে (কভিড-১৯) তিন জন আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে জানিয়েছে সরকারের রোগ ও রোগতত্ত্ব নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর).



তিনি আরো জানান:

১. করোনায় বাংলাদেশি আক্রান্তদের মধ্যে দুজন পুরুষ ও একজন নারী রয়েছে।

২. এদের মধ্যে দুইজন ইতালি ফেরত বাংলাদেশি রয়েছেন।

৩. করোনাভাইরাসে আক্রান্ত তিনজন রোগীর অবস্থায়ই স্থিতিশীল। তারা ভালো আছেন তবে আইসোলেশনে থাকবেন।


সংগৃহিত : https://m.somoynews.tv/pages/details/201786 And Jamuna Tv

3.07.2020

রেকর্ড করে নিজের সেরা ইনিংসটি ভগবানকে উৎসর্গ করলে ক্রিকেটার লিটন দাশ ( ভিডিও সহ )

বাংলাদেশের হয়ে ইতিহাস গড়লেন লিটন কুমার দাস। ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশের হয়ে এক ম্যাচে সর্বোচ্চ ব্যাক্তিগত ১৭৬ রান নিজেরবব্যাটিংয়ে তুললেন এই ওপেনার ব্যাটসম্যান লিটন দাশ।

(ভিডিওটি এই তথ্যের নিচে রয়েছে)



এর আগের ম্যাচে নিজের ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ১৫৮ রানের ম্যাচ খেলেছিলেন বাংলাদেশি ওপেনার ব্যাটর্সম্যান তামিম ইকবাল।




লিটন দাশ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে শুক্রবার ১৪৩ বল খেলে ১৬টি চার ও ৮টি ছক্কার সাহায্যে বাংলাদেশের হয়ে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ১৭৬ রানের ম্যাচটি খেলেন।
শুক্রবার সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের অধিনায়ক মাশরাফির শেষ ক্যাপ্টেন থাকা ম্যাচে টসে হেরে প্রথমে বাংলাদেশ ব্যাটিংয়ে নেমে তামিম ইকবাল ও লিটন দাসের ওপেনিং রেকর্ড ২৯২ রানের । দেশের হয়ে সর্বোচ্চ রানের বিনা উইকেটে ২৯২ রানের জুটির রেকর্ড গড়ে ও তর মধ্যেই তামিম ইকবাল ও লিটন দাশ দুজনেই তুলে নেন সেঞ্চুরি।

ভিডিও



আরো পড়ুন:

খেলা শুরু হওয়ার পর ৩৩.২ over এ বিনা উইকেটে ১৮২ রান করে বাংলাদেশ দল। প্রায় দুই ঘণ্টা বৃষ্টির জন্য খেলা বন্ধ থাকার পর ম্যাচের ভাগ্য নির্ধারণ হয় ৪৩ ওভারে।

বৃষ্টির আগে লিটন দাস ১০১ ও তামিম ইকবাল ৭৯ রানে অপরাজিত ছিলেন। বৃষ্টির পর ফের ব্যাটিংয়ে নেমে রীতিমতো তাণ্ডব চালান দুই ওপেনার । ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ১৩ এবং আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ২৩তম সেঞ্চুরি তুলে নেন বাংলাদেশি ওপেনার তামিম ইকবাল।

তবে ওপেনার তামিম ইকবালকে ছাড়িয়ে নতুন উচ্চতায় পৌঁছে যান লিটন দাশ। বাংলাদেশ জাতীয় দলের এ তারকা ওপেনিং ব্যাটসম্যান দেশের হয়ে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ১৭৬ রানের মাইলফলক স্পর্শকরেন। এবং ভাষ্যকারের প্রশ্নের জবাবে তিনি এই ইনিংসটি হিন্দুদের রীতি মতো ভগবানকে উৎসর্গ করেন। তবে ভগবান উৎসর্গ করা নিয়ে ছোট্ট খাটো ছাড়া বিরুপ প্রতিক্রিয়া তেমন দেখা যায় নি। এর আগে দূর্গাপূজার সময় দেবীদূর্গার ছবি তার ফেসবুক পেজ হতে আপলোড দেওয়ার, সাম্পদায়িক অনেক খারাপ প্রতিক্রিয়ার মধ্যে তাকে ২ ঘন্টার মধ্যে ডিলিট করতে হয়েছিল।

আরো পড়ুন :

=> বিশ্ব নেতারা নমস্কারকে গ্রহণ করেছে করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধের জন্য (ভিডিও)