Full width home advertisement

Post Page Advertisement [Top]

সীমান্ত সংঘাতের জেরে টিকটকসহ অন্যান্য ৫৯টি চীনা অ্যাপ ভারতে নিষিদ্ধ করার ঘোষণা করেছে মোদি সরকার। তারপর থেকেই দেখা যাচ্ছে ভারতীয় অ্যাপগুলো ডাউনলোডের প্রবণতা অত্যন্ত বেড়ে গেছে। সোমবারই চীনের প্রতি প্রতিশোধ স্বরুপ ৫৯টি চীনা অ্যাপকে নিষিদ্ধ করার কথা ঘোষণা করে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। এই অ্যাপগুলোর মধ্যে রয়েছে টিকটক, উইচ্যাট, শেয়ার-ইট এবং ইউসি ব্রাউজারের মতো জনপ্রিয় অ্যাপও। এরকম ৫৯টি চীনা অ্যাপ ভারত ব্যান করায় চীনের ব্যবসায় স্মরণকালের সবচেয়ে ভয়াবহ ধস নেমেছে। এসব অ্যাপের বিশেষ করে এক টিকটকের মূল কোম্পানি ‘বাইটড্যান্স’ ভারতের ডিজিটাল স্ট্রাইকের কবলে পড়ে এরই মধ্যে ৬ বিলিয়ন ডলারের ক্ষতির মুখে পড়েছে, যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৫ লাখ ৯০ হাজার কোটি টাকারও বেশি। ‘বাইটড্যান্স’ টিকটক বাদেও ভিগো ও বাজ-এর মতো ভিডিও শেয়ারিং অ্যাপের ব্যবসায় জড়িত। যাদের বেশির ভাগ ব্যবহারকারী ভারতের। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়ার। জানা গেছে, এখন পর্যন্ত একশো কোটিরও বেশিবার ডাউনলোড হয়েছে টিকটক। এর সক্রিয় ব্যবহারকারী ৮০ কোটিরও বেশি। চীনের বাইরে এই অ্যাপের বেশির ভাগ ব্যবহারকারী রয়েছে ভারতে ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। ভারতে টিকটকের শতকরা ২০ ভাগ ব্যবহারকারী রয়েছে। টিকটকের মূল কোম্পানি ‘বাইটড্যান্স’ বলছে গত কয়েক বছরে ভারতে টিকটকের ব্যবসায় ১ বিলিয়ন পরিমাণ ডলার বিনিয়োগ করেছে তারা। সীমান্ত সংঘাতে ভারতের ডিজিটাল স্ট্রাইক মানে চীনা অ্যাপ নিষিদ্ধ ঘোষণায় ভয়াবহ ক্ষতির মুখে পড়েছে চীনের প্রাইভেট এই ব্যবসা প্রতিষ্ঠানটি। ২০১৯ সালের হিসাবে তাদের মোট রেভিনিউ ২০ বিলিয়ন ডলার। উল্লেখ্য, চীনের সঙ্গে সীমান্ত সংঘাতের জেরে গত ২৯ জুন ভারতের তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় ৫৯টি চীনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করে। ভারতের তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৬৯/এ ধারায় অ্যাপগুলো নিষিদ্ধ করা হয়েছে। গালওয়ান উপত্যকায় চীনা সেনার আক্রমণে ২০ জন ভারতীয় সেনা নিহত হওয়ার পর থেকেই ভারতে চীন-বিদ্বেষ বেড়েছে। এরই মধ্যে চীনা অ্যাপগুলো বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ভারতীয়রা দেশি অ্যাপের দিকেই ঝুঁকছেন। collected link : www . bd-pratidin . com /international-news/2020/07/03/544924

Bottom Ad [Post Page]